ছাত্র অবস্থায় আয়: ৮ টি অভাবনীয় পদ্ধতিতে আপনিও আয় করুন

ছাত্র অবস্থায় অনেকেই আয় করতে চায়, কিন্তু অধিকাংশই গতানুগতিক কয়েকটা আয়ের উপায় ছাড়া জানেই না যে আরও শত উপায়ে ছাত্র অবস্থাতেই আয় করার সুযোগ রয়েছে।

 

তাই আজ আমি ছাত্র অবস্থায় আয় করার অভিনব কিছু উপায় দেখাবো।

 

তো উপায়গুলো সম্পরকে জানতে থাকুন ও তার যেকোন একটি বেছে নিয়ে আয়ের পথে যাত্রা শুরু করুন।

 

ছাত্র অবস্থায় আয় করার উপায়!

আসুন তাহলে জেনে নেই ৮ টি উপায়।

 

ফ্রিল্যান্সিং

এই যুগে ঘরে বসে আয় করার সমচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম হল ফ্রিল্যান্সিং। ছাত্র জীবনে ঘরে বসে আয় করা আসলেই খুব ভাল একটা বিষয়। এখানে আপনি আপনার দক্ষতা অনুযায়ী কাজ পাবেন।

 

আপনি যে কাজে বেশি পারদর্শী সেই কাজই পাবেন এখানে। প্রচুর পরিমাণে কাজ এখানে আছে। আপনার শুধু দেখতে হবে যে, আপনি আসলে কোন কাজ বেশি ভাল পারেন।

 

এই যেমন গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্ট, SEO ইত্যাদি। এর জন্য শুধু আপনাকে কাজ জানতে হবে এবং এই ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটে একটা অ্যাকাউন্ট খুলে আপনার কাজ খুজে কাস্টমারদের কাজ করে দিলেই আপনি হিউজ পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

 

ব্লগিং

ছাত্র জীবনে টাকা ইনকামের আরেকটা সহজ মাধ্যম হল ব্লগিং। আপনার যদি লেখালেখির অভ্যাস থাকে তাহলে এটাই হতে পারে আপনার জন্য সবচেয়ে সহজ মাধ্যম।

 

আপনি যেকোন বিষয় আপনার ব্লগে লিখতে পারেন। হতে পারে সেটা বিভিন্ন টিউটরিয়াল বা নিউজ। এর মাধ্যমে আপনি অনেক টাকা ইনকাম করতে পারেন।

 

ড্রপশিপিং

আপনি যে কোন অনলাইন প্রোডাক্ট বিক্রির ওয়েবসাইট থেকে বা কোন একটা প্রতিষ্ঠানের সাথে ডিল করে তাদের প্রোডাক্ট বায়ারদের কাছে পৌছে দিয়ে ব্যপক পরিমাণে কমিশন পাতে পারেন।

 

ওয়েবসাইট ফ্লিপিং

এর জন্য আপনাকে একটু সময় ব্যয় করতে হবে। আপনি নিজেই ওয়েবসাইট খুলে সেটা কিছু দিন ইউজ করে ভাল ভিউয়ার আনতে পারলে, অর্থাৎ ওয়েবসাইটটা জনপ্রিয় করতে পারলেই আপনি আপনার ওয়াবসাইটটা ১২ থেকে ৩৬ গুণ বা তারও বেশি দামে বিক্রি করে দিতে পারবেন। এটাই হল ওয়েবসাইট ফ্লিপিং এর কাজ।

 

অ্যাডসেন্স

অ্যাডসেন্স হল অনলাইনে টাকা ইনকামের আরেকটা বড় মাধ্যম। এটা হল গুগলের অ্যাড নেটওয়ার্ক। আপনি নিজের জন্য ওয়েবসাইট খুলে বা গেম তৈরি করে বা ইউটিউব চ্যানেল খুলে অ্যাডসেন্স এর সাথে অ্যাড করে দিলেই আপনার অনেক টাকা ইনকাম হবে।

 

ইউটিউব

ছাত্র জীবনে টাকা ইনকামের আরেকটা সহজ উপায় হল ইউটিউবিং। আপনি ইউটিউবে একটা চ্যানেল খুলে সেখানে আপনার পছন্দ মত ভিডিও আপলোড করে হিউজ পরিমাণে ইনকাম করতে পারেন। এখন সবচেয়ে একটা জনপ্রিয় মাধ্যমই হচ্ছে ইউটিউব। অনেক ইয়াং ছেলে-মেয়ে এখন এই কাজ করছে।

 

ই-কমার্স

ই-কমার্স হল অনলাইনের বড় একটা ব্যবসার মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার একাধিক প্রোডাক্ট বা পণ্য ঘরে বসে বিক্রি করে ইনকাম করতে পারবেন। আপনার যদি নিজের কোন একটা ব্যবসা থাকে। তাহলে তো আরো বেশি সুবিধা হয়। কারণ, আপনি আপনার নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের প্রোডাক্ট বা পণ্য গুলি অনলাইনে ঘরে বসে বিক্রি করতে পারেন। এর মাধ্যমে আপনি বিপুল লাভের পাশাপাশি আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জনপ্রিয়তাও বাড়াতে পারবেন।

 

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

ই-কমার্স ও অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং প্রায় একই রকম কাজ। তবে পার্থক্য হল, ই-কমার্স এর মাধ্যম নিজের প্রতিষ্ঠানের প্রোডাক্ট বিক্রি করতে হয়, আর অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে অন্য কোন প্রতিষ্ঠানের পণ্য বিক্রি করতে হয়।

 

আপনার মাধ্যমে যদি কোন প্রোডাক্ট বিক্রি হয় তাহলে আপনি ওই প্রোডাক্ট এর উপর পূর্ব নির্ধারিত একটি কমিশন পাবেন। এর মাধ্যমে আপনি প্রচুর পরিমাণে ইনকাম করতে পারেন।

 

মানুষের জীবনে সবচেয়ে কঠিন একটা সময় হল ছাত্রজীবন। এই সময়ে আমাদের সবচেয়ে খারাপ একটা সময় যায়। আর খারাপ সময় যাওয়ার প্রধান কারণ হল টাকা। অর্থাৎ এই সময়ে পড়াশুনার পাশাপাশি আসলেই তেমন সময় পাওয়া যায় না কাজ করার।

 

যার কারণে টাকার সমস্যা হয়। তবে আজ আমার দেখানো ৮ টি উপায়ের মাধ্যমে আপনি খুবই কম সময়ের মধ্যে ছাত্র জীবনে হিউজ পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারেন।

Leave a Reply