হ্যালো খুলনা ও রাজশাহী বাসী, আমি আজ আপনাদের জানাবো খুলনা টু রাজশাহী ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়া সম্পর্কে। তো চলুন শুরু করি।

 

আমাদের খুলনা থেকে রাজশাহী যাওয়ার জন্য খুবই আরামদায়ক এবং সহজ উপায় হল ট্রেন। এতে যেমন আপনার ভাড়াও কম লাগবে তেমনি আপনি খুবই নিরাপদে গন্তব্যে পৌঁছাতে পারবেন।

 

আমাদের খুলনা থেকে রাজশাহীর দূরত্ব প্রায় ২৮৫ কিলোমিটার। এত দূর যাতায়াত করা আসলেই অনেক কষ্টদায়ক। তাই বেশির ভাগ মানুষ ট্রেন ব্যবস্থা বেছে নেয়। কারণ প্রায় সব ধরনের সুযোগ সুবিধা থাকে ট্রেনে।

 

ট্রেনে যাতায়াত করলে কোন ট্রাফিক জ্যামের ভয় থাকে না এবং একদম নিরিবিলি যাতায়াত করা যায়। ট্রেনে যাতায়াতের জন্য সময় একটু বেশি লাগলেও খুবই সাচ্ছন্দময়।

 

সময়সূচীঃ

খুলনা রেলস্টেশন থেকে রাজশাহীর উদ্দেশ্যে দুইটা ট্রেন নিয়মিত যাতায়াত করে। যার প্রথমটি হল কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ও অন্যটি হল সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস। এই দুইটা ট্রেন নিয়মিত ভাবে খুলনা টু রাজশাহী যাত্রী আনা নেওয়া করছে।

 

তবে কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনটি সপ্তাহের ৬ দিন খুলনা থেকে রাজশাহী যাত্রী আনা নেওয়া করে। শুধুমাত্র শনিবারে এই ট্রেনটি রাজশাহী যায় না। অর্থাৎ শনিবারে বন্ধ থাকে কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনটি। তাই শনিবার বাদে অন্যান্য যে কোন দিন খুলনা থেকে রাজশাহী যাওয়ার জন্য কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনটি পাবেন।

 

অন্যদিকে সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস ট্রেনটিও সপ্তাহের ৬ দিন যাতায়াত করে। কিন্তু শুধুমাত্র সোমবার এই ট্রেনটি বন্ধ থাকে। অর্থাৎ সোমবারে খুলনা থেকে রাজশাহী যাওয়ার জন্য সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস ট্রেনটি পাবেন না।

 

কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনটি সপ্তাহের ৬ দিন ভোর ৬ টা বেজে ৩০ মিনিটে খুলনা রেলস্টেশন থেকে রাজশাহীর উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে। আর রাজশাহী পৌঁছায় প্রায় ৬ ঘন্টা পর। বেলা ১২ টা বেজে ২০ মিনিটের দিকে ট্রেনটি রাজশাহী পৌঁছায়।

 

সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস ট্রেনটি সপ্তাহের ৬ দিনই বেলা ৪ টার সময় খুলনা রেলস্টেশন থেকে যাত্রা শুরু করে। আর রাজশাহী পৌঁছায় প্রায় রাত ১০ টায়। অর্থাৎ সর্বপরি প্রায় ৬ ঘন্টা সময় লাগে খুলনা থেকে রাজশাহী পৌঁছাতে।

 

তবে মাঝে মধ্যে এর থেকে বেশি সময় লাগতে পারে। কারণ ট্রেন যাত্রা পথে অনেক স্টেশনেই যাত্রী ওঠা নামা করার জন্য থামে। তবে সময় বেশি লাগলেও ট্রেনে যাতায়াত করা ভাল।

 

ভাড়াঃ

খুলনা টু রাজশাহী ট্রেন টিকিট মূল্য প্রতি জন        টাকা। তবে এটা সাধারণ চেয়ার ভাড়া। আপনি যদি কেবিন নিতে চান তাহলে ভাড়া বাড়বে। যদি এসি কেবিন নেন তাহলে আরো বেশি ভাড়া পড়বে।