হ্যালো বন্ধুরা, আমি জামান আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি টপিক্স নিয়ে যেখানে আমি খুলনা টু ঢাকা ট্রেনের সময়সূচী নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

 

খুলনা থেকে ঢাকার দূরত্ব (Khulna to Dhaka distance) প্রায় ৩৩৫ কিলোমিটার। তাই খুলনা থেকে ঢাকায় যাওয়া অনেক সময় সাপেক্ষ। খুলনা থেকে ঢাকা যাওয়ার জন্য তাই সবচেয়ে ভাল এবং নিরাপদ মাধ্যম হল ট্রেন। কারণ বাস বা অন্যান্য যানবাহন বেশি নিরাপদ নয়। সময় বেশি লাগলেও তাই সবচেয়ে বেশি মানুষ বেছে নেয় ট্রেন।

 

ট্রেনে খাবার থেকে শুরু করে বাথরুম পর্যন্ত পাবেন। কিন্তু অন্যান্য যানবাহনে এই গুলা থাকে না। ফলে অন্যান্য যানবাহনের তুলনায় অনেক বেশি জনপ্রিয় হচ্ছে ট্রন ব্যবস্থা।

 

খুলনা থেকে ঢাকা যাওয়ার জন্য ট্রেনে যেতে প্রায় ৯ ঘন্টার মত সময় লাগে। এত সময় এক জায়গায় বসে থাকা আসলেই অনেক কষ্টকর। তাই ট্রেনে যাতায়াত করলে আপনি ট্রেনের ভিতর দিয়ে হাটাচলাও করতে পারবেন। যারা ট্রেনে চড়েছেন তারা নিশ্চয়ই এটা জানেন। যা অন্যান্য যাতায়াত মাধ্যমে করা যায় না।

 

এছাড়া ট্রেন বা অন্যান্য মাধ্যমে ঢাকা যেতে হলে অনেকটা সময়ই নষ্ট হয় ফেরী পারাপারে। কারণ ট্রেন বাদে অন্যান্য মাধ্যমে ঢাকা যাওয়ার জন্য অনেক বড় নদী পাড়ি দিতে হয়।

 

যদি আপনি খুলনা থেকে ঢাকা যাওয়ার জন্য যশোরের মধ্য দিয়ে ঢাকা যান তাহলে আরিচা ঘাট পার হতে হবে। আর যদি আপনি গোপালগঞ্জ এর ভিতর দিয়ে যান তাহলে মাওয়া ঘাট পার হতে হবে। যা অনেক বিপদজনক। কারণ বেশির ভাগ সময়েই নদী উত্তাল থাকে। প্রায়ই লঞ্চডুবির ঘটনা শোনা যায়।

 

তাই ট্রেনই বেস্ট মাধ্যম ঢাকা যাওয়ার জন্য। কারণ ট্রেনে গেলে ট্রেন যমুনা সেতু দিয়ে পার হয়ে যায়।

 

এখন খুলনায় নতুন করে অনেক সুন্দর একটি রেলস্টেশন নির্মাণ করা হয়েছে। যা দেখতে প্রায় ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশনের মতই। খুলনার পার হাউজ মোড়ে এই স্টেশনটি রাস্তার ঠিক পাশেই নির্মাণ করা হয়েছে।

 

খুলনা টু ঢাকা ট্রেনের সময়সূচী

খুলনা থেকে ঢাকা যাওয়ার জন্য প্রতিদিন দুইটা ট্রেন যাতায়াত করে। একটি হল “সুন্দরবন এক্সপ্রেস” এবং অপরটি হল “চিত্রা এক্সপ্রেস”। এই দুইটা ট্রেন প্রতিদিন শত শত যাত্রী আনা নেওয়া করছে।

 

দুইটা ট্রেনই সপ্তাহে ৬ দিন যাতায়াত করে। সপ্তাহে এক দিন এই দুইটা ট্রেন যায় না। সুন্দরবর এক্সপ্রেস সপ্তাহের মঙ্গলবারে ঢাকা যায় না, বাকি দিন গুলো যাতায়াত করে। অন্যদিকে চিত্রা এক্সপ্রেস সপ্তাহের সোমবারে ঢাকা যাতায়াত করে না, বাকি দিনগুলো যাতায়াত করে।

 

দুইটি ট্রেনই পৃথক দুটি টাইমে ঢাকা যায়। খুলনা রেলস্টেশন থেকে সুন্দরবন ট্রেন ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হয় রাত ৮ টা ৩০ মিনিটে। আর ঢাকা পৌঁছায় তারপরের দিন প্রায় সকাল ৫ টা ৪০ মিনিটে।

 

অন্যদিকে চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনটি খুলনা রেলস্টেশন থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হয় সকাল ৮ টা ৪০ মিনিটে। আর ঢাকায় পৌঁছায় প্রায় সন্ধ্যা ৫ টা ৪০ মিনিটে।

 

প্রায় ৯ ঘন্টা সময় লাগে ঢাকায় পৌঁছাতে। অনেক ক্ষেত্রে এর থেকে বেশি সময় লাগে যায়। কারণ খুলনা টু ঢাকা যাওয়ার রাস্তায় অনেক স্টেশনেই ট্রেন দাড় করাতে হয় যাত্রী উঠানামা করানোর জন্য। ফলে সেখানে একটু সময় নষ্ট হয়।

 

তবে সর্বপরি সব থেকে নিরাপদ এবং নির্ভেজাল মাধ্যমই হল ট্রেন। খুলনা টু ঢাকা ট্রেনের ভাড়া জনপ্রতি ৫৫০ টাকা। তবে এসি সিটের ভাড়া বেশি। অন্যদিকে কেবিন ভাড়া করতে হলে আরো বেশি টাকা খরচ হবে।

 

তো এই ছিল আজকের বিষয়। সবাইকে ধন্যবাদ।

 

আন্তঃনগর ট্রেনের সময়সূচী

খুলনা টু রাজশাহী ট্রেনের সময়সূচী