হ্যালো বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই। খুলনা জেলায় কয়টি থানা আছে এবং কি কি সেগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

 

খুলনা জেলার থানা সমূহ

আপনারা সবাই জানেন যে খুলনাকে বাংলাদেশের ৩য় বৃহত্তম শহর বলা হয়। খুলনা বিভাগের ১০ টি জেলার মধ্যে খুলনা জেলা অন্যতম। খুলনা বিভাগে মোট ৫৯ থানা রয়েছে। এর মধ্যে খুলনা জেলারই রয়েছে ৯ টি থানা। সেগুলো হলঃ

১। রূপসা

২। তেরখাদা

৩। দিঘলিয়া

৪। ফুলতলা

৫। ডুমুরিয়া

৬। বটিয়াঘাটা

৭। দাকোপ

৮। পাইকগাছা

৯। কয়রা

 

তো চলুন খুলনা জেলার এই ৯ টি থানা সম্পর্কে কিছু তথ্য জেনে নেওয়া যাক।

 

১। রূপসা থানাঃ

রূপসা হল খুলনা জেলার একটি থানা। এর পূর্বে রয়েছে মোল্লাহাট ও ফকিরহাট থানা, পশ্চিমে রয়েছে খুলনা ও খালিশপুর থানা, উত্তরে রয়েছে তেরখাদা থানা ও দক্ষিণে রয়েছে ফকিরহাট ও বটিয়াঘাটা থানা। রূপসা থানার মোট আয়তন হল ১২.১৪ বর্গ কিলোমিটার।

 

এই থানায় মোট প্রায় ১ লক্ষ ৬৭ হাজার ৬ শত ৪ জন লোক বসবাস করে। এদের মধ্যে ৮৬ হাজার ১ শত ৭৬ জন হল পুরুষ এবং বাকি ৮১ হাজার ৪ শত ২৮ জন হল মহিলা। এই থানার বেশির ভাগ লোকজনই মুসলিম। তাই একে মুসলিম প্রধান থানা বলা যেতে পারে।

 

রূপসা থানা ১৯৮৩ সালে গঠিত হয়।

 

২। তেরখাদা থানাঃ

তেরখাদা থানার প্রধান নদী হল আঠারোবাঁকী নদী। এই থানা গঠিত হয় ১৯১৮ সালে। এখানে প্রায় ১ লক্ষ ১০ হাজার ৬ শত ২৮ জন লোক বাস করে। যার মধ্যে ৮৬ হাজার ৮ শত ৯৫ জন মুসলিম, ২৩ হাজার ৭ শত ১০ জন হিন্দু, বৌদ্ধ আছে ৯ জন এবং অন্যান্য ধর্মালম্বী ১৪ জন রয়েছে।

 

তেরখাদা থানার আয়তন হল ১৮৯.৪৮ বর্গ কিলোমিটার। এর উত্তর ও দক্ষিণে রয়েছে যথাক্রমে কালিয়া উপজেলা ও রূপসা উপজেলা। আর পূর্ব ও পশ্চিমে রয়েছে যথাক্রমে মোল্লাহাট ও দিঘলিয়া উপজেলা।

 

৩। দিঘলিয়া থানাঃ

এই থানাকে উপাজেলায় রূপান্তরিত করা হয় ১৯৮৭ সালের ১২ জানুয়ারিতে। দিঘলিয়া থানার আয়তন হল ৭৭.১৭ বর্গ কিলোমিটার। এই থানার প্রধান নদীগুলো হল- ভৈরব, চিত্রা, নবগঙ্গা।

 

এই থানায় মোট ১ লক্ষ ২০ হাজার ৭ শত ৮২ জন লোক থাকে। যার মধ্যে ৬৩ হাজার ৭ শত ৫১ জন হল পুরুষ এবং ৫৭ হাজার ৩১ জন হল মহিলা।

 

৪। ফুলতলা থানাঃ

ফুলতলা থানার মোট জনসংখ্যা হল ১ লক্ষ ৭৭ হাজার ৫ শত ৭০ জন। যার মধ্যে ১ লক্ষ ৫৮ হাজার ৭ শত ৭২ জন হল মুসলিম, ১৮ হাজার ২ শত ১২ জন হল হিন্দু, ৪ শত ৮৯ জন হল বৌদ্ধ, খ্রিস্টান হল ১৪ জন এবং ৮৩ জন হল অন্যান্য ধর্মালম্বী।

 

এই থানার আয়তন হচ্ছে ৮৭.৪১ বর্গ কিলোমিটার।

 

৫। ডুমুরিয়া থানাঃ

এই থানা গঠিত হয় ১৯১৮ সালের ২৫ মার্চে। ১৯৮৩ সালে এই থানাকে উপজেলায় রূপান্তরিত করা হয়। এই থানার মোট আয়তন হচ্ছে ৪৫৪.২৩ বর্গ কিলোমিটার। এর পূর্বে রয়েছে খানহাজান আলী ও খালিশপুর, পশ্চিমে রয়েছে তালা ও কেশবপুর, উত্তরে রয়েছে মনিরামপুর ও অভয়নগর এবং দক্ষিণে রয়েছে বটিয়াঘাটা ও পাইকগাছা উপজেলা।

 

এই থানার মোট জনসংখ্যা হচ্ছে ২ লক্ষ ৭৯ হাজার ৮ শত ৬২ জন।

 

৬। বটিয়াঘাটা থানাঃ

এই থানা গঠিত হয় ১৮৯২ সালে। এর থানার মোট জনসংখ্যা হল ১ লক্ষ ৪০ হাজার ৫ শত ৭৪ জন। বটিয়াঘাটার প্রধান নদীগুলো হল, পশুর নদী, মোংলা নদী,  ভদ্রা নদী, কাজিবাছা নদী, রূপসা ইত্যাদি। এর আয়তন হচ্ছে ২৪৮.৩২ বর্গ কিলোমিটার।

 

৭। দাকোপ থানাঃ

দাকোপ থানায় মোট ১ লক্ষ ৫৭ হাজার ৪ শত ৮৯ জন লোক বসবসা করে। এই থানার আয়তন হল ৯৯১.৫৭ বর্গ কিলোমিটার। ১৯০৬ সালের ১০ ফেব্রুয়ারিতে এই থানা গঠিত হয়।

 

৮। পাইকগাছা থানাঃ

এই থানার প্রধান নদী গুলো হল- মরিচাপ নদী, সেংগ্রাইল নদী, শিবসা নদী, কপোতাক্ষ নদী ইত্যাদি। পাইকগাছা থানা গঠিত হয় ১৮৭২ সালের ২২ এপ্রিলে। এর জনসংখ্যা মোট ২ লক্ষ ৪৮ হাজার ১ শত ১২ জন। এর আয়তন ৪১১.২০ বর্গ কিলোমিটার।

 

৯। কয়রা থানাঃ

কয়রা থানা গঠিত হয় ১৯৮০ সালে এবং এটিকে উপজেলা করা হয় ১৯৮৩ সালে। এর থানার উত্তরে রয়েছে পাইকগাছা উপজেলা আর দক্ষিণে রয়েছে বঙ্গোপসাগর ও সুন্দরবন। এখানে মোট ১ লক্ষ ৯২ হাজার ৫ শত ৩৪ জন লোকের বাস।

 

তো এগুলোই ছিল খুলনা জেলার থানাসমূহের কিছু তথ্য। আশা করি খুলনার নাগরিক হিসাবে জানতে পেরেছেন যে খুলনা জেলার থানা কয়টি।