খুলনায় অনেক ধরনের খাবারই বিখ্যাত তবে তার মধ্যেও কিছু কিছু খাবার একদমই এক্সেপশনাল। আজ আমি সেটাই জানানোর চেষ্টা করবো যাতে করে খুলনা এসে আপনারা এই খাবার গুলো মিস না করেন।

 

আমাদের এই খুলনা যেমন বিখ্যাত তার সুন্দরবনের জন্য ঠিক খাবারের দিক থেকেও কম যায় না। সুলভমূল্যে খুব সুস্বাদু সুস্বাদু খাবার পাবেন এই খুলনায়। যারা ভবিষ্যতে খুলনায় বেড়াতে আসবেন তাদের জন্য এটি খুবই উপকারী একটি পোস্ট কারণ অনেকেই কোথাও বেড়াতে গেলে বুঝে উঠতে পারেন না যে সেখানের কি খাবার দাবার-খাওয়া যায়।

 

তাই কোথাও বেড়াতে গেলে আগে থেকেই যদি ঐ শহরের বিখ্যাত খাবার সম্পর্কে জানা থাকে তাহলে খুব ভালই হয়। আর এই কারণেই আজ আমি খুলনার বিখ্যাত খাবার নিয়ে কথা বলবো। খুলনায় কোন কোন খাবার গুলো বেশি বিখ্যাত, কেমন দাম এবং কোথায় পাওয়া যাবে সেটা বিস্তারিত ভাবে বলবো এই পোস্টেই।

 

খুলনার বিখ্যাত খাবার

YouTube video

তো চলুন শুরু করা যাক।

 

আব্বাসের খাসির মাংস

খুলনার সবচেয়ে বেশি বিখ্যাত খাবারের মধ্যে আব্বাসের হোটেলের এই খাসির মাংস বাদ দেওয়া যাবে না। খুব সুস্বাদু এবং একেবারেই অন্যরকম এক স্বাদ পাওয়া যায় আব্বাসের এই খাসির মাংসে।

 

খুলনা থেকে সাতক্ষীরা যাওয়ার পথে হাইওয়ের পাশেই চুকনগর নাম করে একটি জায়গা আছে যেখানে মোড়ের ওপর রাস্তার পাশেই এই আব্বাসের হোটেল অবস্থিত। এখানে প্রতিদিনই দূর-দূরান্ত থেকে অনেক মানুষ শুধুমাত্র এই খাসির মাংস খেতে আসে। বহু বছর ধরে একইভাবে এরা খুবই সুস্বাদু খাসির মাংস রান্না করে চলেছে। 

 

কেউ কেউ আবার একে চুকনগরের খাসির মাংসও বলে। প্রতি পিস গোসের দাম ৭০ টাকা করে নেয় যা দামের দিক থেকে রিসোনেবলই বলা চলে। তাই আপনি কখনো খুলনায় এলে চুকনগরে অবস্থিত আব্বাসের হোটেলের খাসির মাংস খেতে ভুল করবেন না কিন্তু।

 

গরুর দুধের সরের চা

খুলনা নিউ মার্কেটের পাশে প্রাক্তন ঝিনুক হলের পাশেই আপনি পাবেন এই বিখ্যাত গরুর দুধের সরের চা। যে চা এর স্বাদ অসাধারণ। এখানে প্রচুর মানুষ ভিড় করে এই চা এর জন্য। যা গরুর দুধের সর দিয়ে তৈরি করা হয়ে থাকে। যার ফলে স্বাদটা একটু ব্যতিক্রমী হয়ে থাকে। শুধু নিউ মার্কেট নয়, এটি আপনি খুলনার সাত রাস্তার মোড়েও পাবেন।

 

মান্নানের চটপটি ও ফালুদা

খুলনার আরেকটি নাম করা খাবার হল মান্নানের চটপটি ও ফালুদা। খুলনার শহীদ হাদিস পার্কের বিপরীতে শঙ্খ মার্কেটের পাশেই এই মান্নান চটপটির দোকান। খুলনা যে কোন লোক জনই এক নামে চেনে এই দোকান। খুবই সুন্দর করে চটপটি ও ফালুদা বানায়। প্রতি প্লেটের দাম নেয় ৫০ টাকা।

 

খুলনায় এই ব্যক্তি চটপটি বিক্রি করেই চার তলা বাড়ি বানিয়েছে। চিন্তা করে দেখুন কত বিখ্যাত তার খাবার। তাই খুলনায় আসলে মিস করবেন না মান্নানের দোকানের চটপটি ও ফালুদা।

 

বিস্ট্রো-সি এর ফাস্ট ফুড

খুলনা শহরের প্রান কেন্দ্রে রয়েলের মোড়ে ক্যাসল সালাম হোটেলের দো-তলায় রয়েছে এই বিস্ট্রো-সি। যদিও এখানে খাবারের দাম একটু বেশি। কিন্তু এখানের ফাস্ট ফুডের খাবার গুলো খুবই সুস্বাদু। বিশেষ করে এখানে অনেক ধনী ধনী লোকেরাই যাওয়া আসা করে। কারণ এখানে সকল খাবারের মূল্য বেশি। তবে এরা অনেক সুন্দর করে প্রতিটা খাবার রান্না করে থাকে।

 

প্রায় ফাস্ট ফুডের সকল খাবারই এখানে পাবেন আপনি। যদি খুলনায় আসেন তাহলে এখানে খেয়ে যাবেন অবশ্যই।

 

কাচ্চি বিরিয়ানি

খুলনার সাত রাস্তায় রয়েছে কাচ্চি ঘর নাম করে একটি বিরিয়ানির দোকান। যার নাম সবাই জানে। এখানের বিরিয়ানির স্বাদ খুবই জনপ্রিয়। প্রতিদিন অনেক মানুষের ভিড় থাকে এখানে। বেশি রাত হয়ে গেলে আপনি এখানে খাবার পাবেন না। কারণ নির্দিষ্ট টাইমের মধ্যেই খাবার শেষ হয়ে যায়। এখানে বিফ বিরিয়ানির সাথে চিকেন বিরিয়ানিও পাবেন।

 

গোলামের ১ টাকার পুরি

এই যুগে ১ টাকায় পুরি পাওয়া যায় সেটা শুনে হয়তো অবাক হচ্ছেন। কিন্তু খুলনার মিনা বাজারের পাশ দিয়ে ময়লা পোতার দিকে যে রোডটা গিয়েছে সেই রোদে পাবেন এই ১ টাকার পুরি। দাম কম হলেও স্বাদের দিক দিয়ে ফাস্ট ক্লাস।

 

হোটেল রয়েলের ফালুদা

খুলনার রয়েলের মোড়ে রয়েল হোটেলের ফালুদার রয়েছে অনেক ডাকনাম। খুবই সুন্দর ভাবে এখানে ফালুদা তৈরি করে। যা খেতে আপনার অনেক টেষ্ট লাগবে।

 

EFC এর  Fried Chicken

এটি পাওনিয়ার কলেজের পাশেই পাবেন। যার টেষ্ট অসাধারণ। খুলনার কমার্স কলেজের পাশেই পাওনিয়ার কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। যে কেউকে বললেই চিনিয়ে দেবে। তাই খুলনায় আসলে এখানের ফ্রাইড চিকেন মিস করবেন না।

 

জিরো পয়েন্টের গরুর মাংস

চুকনগরের খাসির মাংসের মত জিরো পয়েন্টের গরুর মাংসও খুবই বিখ্যাত। খুলনার গল্লামারি থেকে খুলনা ভার্সিটির পাশ দিয়ে যে রোড চলে গেছে তার ঠিক মাথায় জিরো পয়েন্ট। আপনি চাইলে গল্লামারি থেকে ভ্যানে বা অটোতে করে যেতে পারবেন। যেতে মাত্র ৫ টাকা খরচ হবে।

 

এখানে গরুর মাংসের টেষ্ট খুবই সুস্বাদু। এখানে চুঁই ঝালের গরুর মাংস রান্না করা হয়। শুধু গরু নয়, চুঁই ঝালের খাসির মাংসও পাবেন এখানে। প্রতি পিস মাংস এখানে ১০০ টাকা নেবে।

 

তো আমার জানা মতে এইগুলোই ছিল খুলনার বিখ্যাত খাবারের নাম ও দোকানের ঠিকানা। এছাড়া আরো অনেক খাবার আছে যা লিখে প্রকাশ করা অনেক সময় সাপেক্ষ। যদি আপনারা খুলনার আরো কোন ভাল খাবার চিনে থাকেন তাহলে কমেন্টে জানান। যাতে করে সবাই জানতে পারে সে খাবার সম্পর্কে।